সিলেট অঞ্চলে অনাবাদি থাকে দুই লাখ হেক্টর জমি

অগাষ্ট 30, 2006

প্রবাসীবহুল সিলেটে সিলেট বিভাগে ফসল হয় কম৷ প্রতি বছর অনাবাদি পড়ে থাকে শত শত একর জমি ৷ সরকারি হিসাবে শুধু সিলেট জেলার ১১ উপজেলাতেই কমপক্ষে ১ লাখ ৮১ হাজার ৩০ হেক্টর জমি অনাবাদি পড়ে থাকে৷ বেসরকারি হিসাবে এ অনাবাদি জমির পরিমাণ আরো বেশি৷ প্রবাসীদের কৃষিতে বিনিয়োগে অনাগ্রহ, সেচের পানির তীব্র সঙ্কট, স্থানীয়দের কৃষিকাজে অভিজ্ঞতা ও ধৈের্যর অভাব এবং বেশি মজুরিসহ নানা কারণেই এসব ফসলি জমি অনাবাদি পড়ে থাকে৷ সিলেটের এসব অনাবাদি জমিতে প্রবাসীরা এখন কাঁড়ি কাঁড়ি অের্থ শুধুই বিলাসবহুল বাড়ি বানাচ্ছেন৷

Read the rest of this entry »


নবজাতকের মৃত্যুঝুঁকি বেশি

অগাষ্ট 30, 2006

সিলেটে জন্মের সময় মৃত্যুর ঝুঁকি নিয়ে বিনা চিকিত্সায় পৃথিবীর আলো দেখে শতকরা ৯৩ দশমিক ৮ ভাগ নবজাতক, যাদের মধ্যে প্রাথমিক প্রশিক্ষণহীন দাইয়ের হাতে জন্মে ৮৮ দশমিক ৯ ভাগ শিশু৷ আর গর্ভকালীন চিকিত্সা সেবা পায় না ৫৬ ভাগ মা৷ সিলেটে শিশু মৃত্যুর হার এখনো সের্বাচ্চ৷ বাংলাদেশ ডেমগ্রাফিক অ্যান্ড হেলথ সাের্ভতে এমন আশঙ্কাজনক তথ্য তুলে ধরা হয়েছে৷ গত জানুয়ারি মাসে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়৷ জানা যায়, বাংলাদেশে নবজাতকের মৃত্যুর হার প্রতি ১০০০ জীবিত জন্মগ্রহণকারী শিশুর মধ্যে ৪১ জন৷

Read the rest of this entry »


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ডাক্তারের বিরুদ্ধে কিডনি চুরির অভিযোগ

অগাষ্ট 30, 2006

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চিকিত্সকের বিরুদ্ধে কিডনি চুরির চাঞ্চল্যকর অভিযোগ আনা হয়েছে৷ গতকাল রবিবার এ অভিযোগে ডা. আবু সাঈদের বিরুদ্ধে সদর কোের্ট মামলা করেছেন শহরের মধ্যপাড়ার হেবজু মিয়া৷ ম্যাজিস্ট্রেট সদর থানার ওসিকে জরুরিভিত্ততে এফআইআর করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার নিের্দশ দিয়েছেন৷ তবে চিকিত্সক বলছেন, অভিযোগটি হাস্যকর৷ মামলার আির্জ সূত্রে জানা যায়, বাদী হেবজু মিয়া তার আত্মীয় হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার মাহমুদপুরের বাসিন্দা নাসিরউদ্দিন চৌধুরীকে ২০০৫ সালের ১১ এপ্রিল ডা. আবু সাঈদের ক্লিনিক ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিত্সার জন্য নিয়ে যান৷

Read the rest of this entry »


হবিগঞ্জে দু’দল গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘের্ষ আহত অর্ধশতাধিক ভাংচুর লুটপাট

অগাষ্ট 30, 2006

মক্তব তৈরিকে কেন্দ্র করে হবিগঞ্জ শহরতলিতে দু’দল গ্রামবাসীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘের্ষ শিশু ও মহিলাসহ কমপক্ষে অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে৷ আহতদের হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতাল ও স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিত্সা দেয়া হচ্ছে৷ রবিবার সকালে হবিগঞ্জ শহরতলির নোয়াগাঁও গ্রামে এ রক্তক্ষয়ী সংঘের্ষর ঘটনা ঘটে৷ জানা যায়, নোয়াগাঁও গ্রামের বাসিন্দা অ্যাডভোকেট আজমান আলীর লোকজন সরকারি খাসজমিতে মসজিদ তৈরি করতে গেলে একই গ্রামের শাহ আলমের লোকজন বাধা দেয়৷ এক পর্যায়ে দু’পক্ষ সংঘের্ষ জড়িয়ে পড়ে৷ প্রায় ২ ঘণ্টা স্থায়ী এ সংঘর্ষ থামাতে পার্শ্ববর্তী গ্রামের মুরব্বিরা ব্যর্থ হলে হবিগঞ্জ সদর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে৷

Read the rest of this entry »


শিক্ষায় সব বিভাগের নিচে

অগাষ্ট 30, 2006

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শিক্ষক সঙ্কট, অনুন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা ও বিদেশ যাওয়ার প্রবণতাসহ নানা কারণে সিলেট বিভাগের শিক্ষার হার ও মান দিনে দিনে নিচের দিকে নেমে এখন তা সব বিভাগের নিচে এসে দাঁড়িয়েছে৷ বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর দেয়া সর্বশেষ তথ্য অনুয়ায়ী, সাক্ষরতার হারের দিক দিয়ে সিলেট বিভাগই এখন সবচেয়ে নিচে৷ এ বিভাগে সাক্ষরতার হার জাতীয় হারের প্রায় ৮ ভাগ কম৷ অথচ এক সময় সিলেটে এ হার ছিল উল্লেখ করার মতো৷ জানা যায়, ১৯৫১ সালে সিলেট বিভাগে এর হার ছিল ২৪ দশমিক ৪৷ ১০ বছরের ব্যবধানে ১৯৬১ সালে তা কমে দাঁড়ায় ২০ ভাগে৷ ১৯৮১ সালে তা আরো কমে হয় ১৯ দশমিক ৯ ভাগ৷ ১৯৯১ সালে সারা দেশে গড় হারের চেয়ে সিলেট বিভাগে গড় সাক্ষরতার হার ছিল ৮ ভাগ কম৷ ওই বছর দেশে গড় সাক্ষরতার হার ৩৫ থাকলেও সিলেটে ছিল প্রায় ২৭ ভাগ৷ ২০০১ সালের পরিসংখ্যানেও দেশের ছয়টি বিভাগের মধ্যে সিলেট বিভাগে সাক্ষরতার হার ছিল সর্বনিম্ন৷

Read the rest of this entry »


জন্মশাসনে একেবারে পিছিয়ে

অগাষ্ট 30, 2006

ধর্মীয় অনুশাসন ও গোঁড়ামি, সচ্ছলতা, পর্দাপ্রথাসহ নানা কারণে জন্মশাসনে পিছিয়ে সিলেট৷ এ অঞ্চলে জনসংখ্যা বাড়ার হার দেশের অন্য যেকোন অঞ্চলের চেয়ে বেশি৷ দেশের বেশির ভাগ এলাকায় মহিলাদের প্রজনন হার কমতে থাকলেও এ অঞ্চলে তা বেড়েই চলেছে৷ সিলেটের প্রায় সব এলাকায় পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি বাস্তবায়নে হিমসিম খেতে হচ্ছে কর্মকর্তাদের৷ তার ওপর জনবল সঙ্কট ও কর্মকর্তাদের ভ্রান্ত ধারণার কারণে পরিবার পরিকল্পনা কার্যক্রম চলছে ধীরগতিতে৷ অনেক মাঠকর্মী পরিবার পরিকল্পনার ব্যাপারে দম্পতিদের উদ্ধুদ্ধ করতে মাঠেই যাচ্ছে না বলে অভিযোগ রয়েছে৷

Read the rest of this entry »


বারবার ফসলহানিতে কমছে কৃষকের আগ্রহ

অগাষ্ট 30, 2006

সিলেটে চাষাবাদের একটি বড়ো অংশই হাওরের দেশ সুনামগঞ্জে৷ কিন্তু বারবার ফসলডুবির ঘটনায় এখানকার কৃষকরা গরিব থেকে গরিব হচ্ছেন৷ অনেকে আবার সর্বশান্ত হয়ে চাষাবাদই ছাড়ছেন৷ ১৯৯৯ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত সময়ে সুনামগঞ্জের হাওরাঞ্চলে পাঁচ বছরে দফায় দফায় আকস্মKি বন্যায় সরকারি হিসাবেই প্রায় ৪০০ কোটি টাকার ফসলহানি ঘটেছে৷ পাঁচ বছরে এক বছর পর পর ফসলডুবির ঘটনায় প্রকৃতির বৈরিতার চেয়ে পানি উন্নয়ন বোের্ডর কর্মকর্তাদের দুর্নীতিকেই দায়ী করছে সাধারণজনরা৷

Read the rest of this entry »