শাবি’র ভিসি ক্যাম্পাস ছাড়লেও পদ ছাড়েননি শিক্ষক ধর্মঘট অব্যাহত

শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) বিতর্কিত পদত্যাগী ভিসি মুসলেহ উদ্দিন আহমদ ক্যাম্পাস প্রায় ছেড়েই দিয়েছেন। গত ১৫ দিনে তিনি স্বপদে বহাল তবিয়তে থেকেও মাত্র ৩ মিনিটের জন্য ক্যাম্পাসে ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ শিক্ষকদের প্রতিরোধের ঘোষণার পর তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের চৌহদ্দিতে ঢুকছেন না। অথচ সিলেটে মন্ত্রী ও আমলাদের কোন অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত না হয়েও সরাসরি উপস্থিত থাকছেন। একজন পদলোভী ভিসির এহেন কর্মকাণ্ডে সিলেটের সুশীল সমাজ এবং অভিভাবকরা প্রশ্ন তোলে ক্ষোভের কথা জানিয়েছেন। ভিসির অপসারণ দাবিতে প্রগতিশীল শিক্ষকদের ৬ সেপ্টেম্বর থেকে লাগাতার অবস্থান ধর্মঘট গত ১৩ দিন ধরে অব্যাহত রয়েছে। গতকাল সকাল সাড়ে ৯টা থেকে ৩ জন ডিনসহ প্রায় ৫০-৫৫ জন শিক্ষক ভিসি কার্যালয়ের সামনে অবস্থান ধর্মঘটে যোগ দেন। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় চালুর লক্ষ্যে এ ধারার শিক্ষকদের সঙ্গে বিএনপি-জামায়াতপন্থী শিক্ষকদের আলোচনা ভেস্তে গেছে। ডানপন্থী শিক্ষকদের ভিসি অপসারণ দাবি বাদ দিয়ে প্রমোশন ও নিয়োগ স্বাভাবিক রাখার শর্তে আলোচনা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন আন্দোলনকারী শিক্ষকরা। আলোচনায় বিফল হয়ে ভিসিপন্থী শিক্ষকরা গতকাল প্রগতিশীল শিক্ষকদের অবস্থান ধর্মঘটরত স্থানে গিয়ে উচ্চবাচ্য করেছেন। এতে উভয় পক্ষের শিক্ষকদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হলে মৃদু উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তবে প্রগতিশীল শিক্ষকদের অবস্থান ধর্মঘটের বৈধতার প্রশ্ন তুলে শেষ পর্যন- ডানপন্থী শিক্ষকরা নিজেরাই এর প্রতিবাদে অবস্থান ধর্মঘট করেন। ডানপন্থী শিক্ষকদের আহ্বায়ক প্রফেসর হাবিবুল আহসান এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে প্রতিদিন সকাল থেকে একই স্থানে দুপুর ১টা পর্যন- অবস্থান ধর্মঘটের কর্মসূচি পালন করা হবে বলে জানান। শিক্ষকদের বিপক্ষে শিক্ষকদের অবস্থানকে দুঃখজনক জানিয়ে প্রগতিশীল শিক্ষক জহীর উদ্দিন আহমদ বলেন, ভিসিপন্থী শিক্ষকরা আলোচনার নামে কালক্ষেপণ ও ভাঁওতাবাজি করেছেন।
বিশ্ববিদ্যালয় চালুর দাবিতে আজ থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সাধারণ ছাত্রছাত্রীরা লাগাতার অবস্থান ধর্মঘট শুরু করছে। পাশাপাশি ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীরা শাবি অবরোধ করবে। ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ ভিসি অপসারণ দাবিতে বিক্ষোভ-সমাবেশ-অবরোধ কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে।
ভিসির অনুমোদন না পাওয়ায় হিন্দু ধর্মাবলম্বী শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী দুর্গাপূজায় বোনাস পাচ্ছেন না। এনিয়ে সবার মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। অন্যদিকে ১৪ সেপ্টেম্বর কর্মচারী ইউনিয়নের ১৩ সদস্য একযোগে পদত্যাগ করায় সমিতি অকার্যকর হয়ে পড়েছে। গঠনতন্ত্র মোতাবেক সাধারণ সদস্যরা এক জরুরি সভায় মিলিত হয়ে ভিসির দুর্নীতি-অনিয়মের সহযোগী সভাপতি আবদুস শহীদ ও সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলামকে বহিষ্কার করেছেন। পরবর্তীকালে মোঃ ইসহাক আলীকে আহ্বায়ক করে ৯ সদস্যের এক আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়।
সূত্রঃ http://jugantor.com/online/news.php?id=22016&sys=3

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: