সিলেটে বিল দখল করে জামায়াত নেতাদের আবাসিক প্রকল্প

সিলেটে বিল দখল করে জামায়াত নেতারা গড়ে তুলছেন সোনারগাঁ রিভার ভিউ আবাসিক প্রকল্প। দক্ষিণ সুরমায় সরকারের খাস খতিয়ানভুক্ত লোহাজুরি বিলের ৬৫ একর ভূমির ওপর এ প্রকল্প হচ্ছে। জামায়াত নেতা ও সিলেট জেলা শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতি জয়নাল আবেদীন এবং সাবেক শিবির নেতা সাইফুলল্গাহ আল হোসাইনের মালিকানাধীন সাউথ সুরমা সিটি লিমিটেড এ প্রকল্কপ্প গড়ে তুলছে। তারা লোহাজুরি বিলের ভোগদখলকারী এলাকার কতিপয় লোকের কাছ থেকে একটি লিখিত চুক্তি করে বিলের মালিক সেজেছেন। প্রকল্কপ্প এলাকাটি এখনো জলাশয় থাকলেও দ্রুতই মাটি ভরাট করা হবে_ এ আশ্বাসে তারা পল্গট বিত্রিক্র করে চলেছেন। এটা সাউথ সুরমা সিটি লিমিটেডের দ্বিতীয় প্রকল্কপ্প। এর সংলগ্গম্ন তাদের প্রথম প্রকল্কেপ্পও বিপুল পরিমাণ খাসজমি অনস্নভর্ুক্ত করা হয়েছে। জেলা প্রশাসন সহৃত্র জানিয়েছে, তারা প্রকল্কপ্পভুক্ত খাসজমি চিহিক্রত ও উদব্দারের প্রত্রিক্রয়া শুরু করেছে।
সোনারগাঁ আবাসিকের প্রথম প্রকল্কেপ্পর পল্গট ত্রেক্রতা বিশ্বনাথের লন্ডন প্রবাসী কাজী ফয়জুর রহমান সমকালকে বলেন, পল্গট ত্রক্রয়ের পর এখন শুনতে পাচ্ছেন এ প্রকল্কেপ্পর মধ্যে খাসজমি রয়েছে। উদ্বিগ্গম্ন ত্রেক্রতা বলেন, অনেক প্রবাসীই স্ট্কেচম্যাপ দেখে এখানে উচ্চ মহৃল্যে পল্গট কিনেছেন। কিন্তু এসব পল্গট এখনো ঘর নির্মাণের উপযোগী নয়।
এ ব্যাপারে সিলেটের জেলা প্রশাসক এসএম ফয়সল আলম সমকালকে জানান, জুরি বিল সরকারের খাস খতিয়ানভুক্ত। এ বিলের ভূমি কেউ কারো কাছে বিত্রিক্র করতে পারে না। যদি কেউ সেটা করে থাকে তবে তা সল্ফঙ্হৃর্ণ বেআইনি ও অবৈধ। জেলা প্রশাসক আরো জানান, লোহাজুরি বিলের ব্যাপারে তিনি প্রশাসনের সংশিল্গষদ্বদের দিয়ে একটি সরেজমিন তদনস্ন রিপোর্ট তৈরি করিয়েছেন।
এদিকে আবাসিক প্রকল্কেপ্পর প্রকল্কপ্প পরিচালক সাইফুলল্গাহ আল হোসাইনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, লোহাজুরি বিলের ৬৫ একর ভূমির মালিক সরকার নয়। এ ভূমির মালিক এলাকার লোকজন। ওই মালিকদের কাছ থেকেই ভূমি ত্রক্রয় করে তারা আবাসিক প্রকল্কপ্প গড়ে তুলছেন।
সংশিল্গষদ্ব সহৃত্র ও রেকর্ডপত্র থেকে জানা যায়, দক্ষিণ সুরমার কুচাই মৌজায় ৬৫ একর ভূমি নিয়ে লোহাজুরি বিলের অবস্ট্থান। ১৯৫৬ সালের এসএ রেকর্ডে এ বিলের ভূমিকে সরকারের খাস খতিয়ানভুক্ত করা হয়। তখন এলাকায় ভোগদখলকারীদের পক্ষে কয়েকজন এর বিরোধিতা করে মামলা করেন। মামলা চলাকালীন এলাকার প্রভাবশালী ১০ ব্যক্তি হাইকোর্টে ১৯৯৮ সালে একটি রিট মামলা (নং-২০৬৫) এবং ২০০৪ সালে আরেকটি রিট মামলা (নং-৪৪৩০) দায়ের করেন। রিট মামলার বাদীরা হলেন, দক্ষিণ সুরমার কুচাই গ্রামের চেরাগ উদ্দিন আহমদ, শহিদ উদ্দিন আহমদ, সৈয়দ আলী আজম মুকুল, সৈয়দ আবুল কাশেম মন্টু, আবদুল মছবি্বর, জফুর মিয়া, মাহবুব আহমদ, কামাল আহমদ, হাসান মাহমুদ ও মখন মিয়া।
দায়েরকৃত রিট মামলা এখনো বিচারাধীন। এ অবস্ট্থায় সাউথ সুরমা সিটি লিমিটেডের মালিক জামায়াত নেতারা রিট মামলাকারী এলাকার ওই ১০ ব্যক্তিকে ম্যানেজ করে মামলা পরিচালনার দায়ভার গ্রহণ এবং বিলের ৬৫ একর ভূমি তাদের নামে লিখে দেওয়ার কথাবার্তা চূড়ানস্ন করেন। সে অনুযায়ী অত্যনস্ন চুপিসারে গত বছরের ১২ ডিসেল্ফ্বর কুচাই গ্রামের ওই ১০ ব্যক্তির সঙ্গে সাউথ সুরমা সিটি লিমিটেডের পক্ষে ব্যবস্ট্থাপনা পরিচালক জয়নাল আবেদীন ২৫০ টাকা মহৃল্যমানের সদ্ব্যাল্ফেঙ্ লিখিত একটি চুক্তিপত্র রেজিসদ্ব্রি করে নেন। এলাকার শতাধিক পরিবার এ বিলের ভোগদখলকারী হলেও অনেকে তা টেরই পাননি। জানা যায়, এ পুরো প্রত্রিক্রয়ায় জামায়াত নেতাদের হয়ে কাজ করেন বিলের ভূমির কথিত মালিকদের একজন জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সল্ফঙ্াদক সৈয়দ আবুল কাশেম মন্টু। এ ব্যাপারে সৈয়দ আবুল কাশেম মন্টুর মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি ব্যস্টস্ন আছেন বলেই লাইন কেটে দেন। জানা যায়, প্রকল্কপ্প কতর্ৃপক্ষ ইতিমধ্যে এ প্রকল্কেপ্প ১০ লাখ টাকা মহৃল্যের অনেক শেয়ারও বিত্রিক্র করে ফেলেছে। এছাড়া তারা প্রতি শতক ভূমির মহৃল্য পৌনে ৩ লাখ টাকা হারে পল্গটও বিত্রিক্র করছে।

সূত্রঃ  http://www.shamokal.com/details.php?nid=43198

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: