হবিগঞ্জের বনাঞ্চলে অবাধে সম্পদ লোপাট

জেলার বনাঞ্চলে মূল্যবান বৃৰ নিধন অব্যাহত থাকায় বিসত্দীর্ণ পাহাড়িয়া এলাকা বিরান হওয়ার উপক্রম হয়েছে। নতুন বনাঞ্চল সৃষ্টির কার্যক্রমে ভাটা পড়লেও প্রতিদিনই জেলার সংরৰিত বনাঞ্চল হতে মূল্যবান সেগুন, জারম্নল, মেহগিনি, শাল, চামল, মালাকানা, একাশিয়া গাছ চুরি হয়ে যাচ্ছে। বনাঞ্চল সংলগ্ন কোন কোন গ্রামে সংঘবদ্ধ কাঠ চোরদের দুর্ভেদ্য ঘাঁটি গড়ে উঠেছে।

জেলার মাধবপুর, চুনারম্নঘাট, বাহুবল ও নবীগঞ্জ উপজেলায় সর্বমোট বনাঞ্চলের পরিমাণ ২৮০৭৫ একর। কিন্তু বর্তমানে জেলার চারটি বন রেঞ্জের অধীন কালেঙ্গা, পুটিজুরী, রেমা, রশিদপুর, ছনবাড়ি, সাতছড়ি, তেলমাছড়া, শাহ্পুর, জগদীশপুর, শালটিলা, শাহজীবাজার বিটের অধীন বনাঞ্চলে যে হারে বৃৰ নিধন চলছে তাতে আগামী কয়েক বছরের মধ্যেই বনাঞ্চল উজাড় হয়ে পরিবেশ বিপর্যয় দেখা দেয়ার আশঙ্কা রয়েছে। একই সঙ্গে জেলার ২৪টি চা-বাগানের মূল্যবান শেড ট্রি (ছায়াবৃৰ) ব্যাপকভাবে চুরি হচ্ছে।

চোরাই কাঠ প্রতিদিন কতর্ৃপৰের সম্মুখ দিয়ে কাঠের কারখানা কিংবা ইটের ভাটায় পাচার হয়ে যাচ্ছে। এই পাচার পর্বে একশ্রেণীর অসাধু বন বিভাগীয় কর্মচারী, আইন-শৃঙ্খলা রৰাকারী বাহিনী এবং প্রভাবশালী মহল অংশগ্রহণ করে। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে সাতছড়ি, শায়েসত্দাগঞ্জ, ভুনবীর প্রভৃতি স্থানে অবস্থিত ফরেস্ট চেক পোষ্টগুলো চোরাই কাঠ পাচার রোধে ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছে। বৃটিশ আমলে প্রতিষ্ঠিত চুনারম্নঘাট ফরেষ্ট চেক পোষ্টটি গত কয়েক বছর পূর্বে উঠিয়ে দেয়ায় কাঠ পাচারকারীরা বেজায় খুশি। জেলার প্রানত্দ সীমানা মাধবপুরের নিকটে মহাসড়কে কোন ফরেষ্ট চেক পোষ্ট না থাকায় জেলার বনজ সম্পদ অবাধে পাচার হয়ে যাচ্ছে।

হবিগঞ্জ জেলার বনাঞ্চলের বিট অফিসসমূহে প্রয়োজনীয় সংখ্যক সশস্ত্র নিরাপত্তাকমর্ী না থাকায় প্রায়ই কাঠ চোরদের মোকাবেলা করা বনকমর্ীদের পৰে সম্ভব হয় না। এছাড়া প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দও কাঠ পাচারে মদদ দিয়ে থাকে। অনেক সময় ফ্রি লাইসেন্সের সুযোগে ব্যাপক হারে কাঠ পাচার হয়। কাঠের আসবাবপত্র তৈরি করেও দেশের বিভিন্ন স্থানে তা অবাধে পাচার হচ্ছে। সীমানত্দ এলাকার বনাঞ্চলে কার্যতঃ বন কর্মচারীরা অসহায়। সাম্প্রতিককালে হবিগঞ্জ জেলায় চোরাই কাঠের ব্যবসা জমজমাট হয়ে উঠায় হবিগঞ্জ শহর, শায়েসত্দাগঞ্জ, চুনারম্নঘাট, নোয়াপাড়া, মিরপুর, মাধবপুর প্রভৃতি এলাকায় অসংখ্য কাঠের কারখানা ও ফার্নিচারের দোকান গজিয়ে উঠেছে।

সূত্রঃ http://ittefaq.com/get.php?d=06/11/20/w/n_zvmmvv

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: